ঘাটশিলা (Ghatshila)

কলকাতা থেকে মাত্র ২১৫ কিমি দূরে ৩.৫ ঘন্টার পথে চলে যাওয়াই যায় প্রতিবেশি রাজ্যের অন্যতম পর্যটন কেন্দ্র ঘাটশিলাতে ।

সূবর্ণরেখা নদীর তীরে অবস্হিত ঘাটশিলা, সপ্তাহান্তিক অবকাশ যাপনের জন্য উপযুক্ত জায়গা । সোনালী রঙের জলের ধারার জন্যই এই নদীর সূবর্ণরেখা নামটি স্বার্থক হয়েছে । অনেক লোকের মতে, এই নদীর জলে নাকি সোনা লুকিয়ে রয়েছে, ধাতু সোনা পাওয়া যাবে কিনা তা বলতে না পারলেও সোনার থেকে দামি প্রকৃতির অপরূপ শোভা যে প্রাণ ভরে উপভোগ করা যাবে সে বিষয়ে নিশ্চিত । বর্ষায় সূবর্ণরেখার রূপ দেখলে আরো মুগ্ধ হতে হয় । নানা রঙিন পাথর ও শিলার বাঁধা অতিক্রম করেই ছুটে চলেছে এই নদী অজানা কোনো উদ্দেশ্যে ।

ঘাটশিলা থেকে ঘুরে আসতে পারে মাত্র ১০ কিমি দূরে গাডুলি ড্যাম এবং ৬ কিমি দূরে ছবির মতো সুন্দর বুরুডি লেক । এখানে বোটিং আর আনন্দ উপভোগ করতে পারবেন ।

ঘাটশিলা থাকে ২ কিমি দূরে ফুলডুঙরি পাহাড় । সবুজ শালবনে ঘেরা আঁকাবাঁকা পথ ও লাল রঙের পাথরের সৌন্দর্য্যে সকলকে মোহিত হতেই হয় । ৯ কিমি দূরে ধারাগিরি পাথুরে ঝর্ণা আদর্শ বনভোজনের স্থান । এছাড়াও গৌরীকুঞ্জ, যদুগোড়ার কাছে রঙ্গিনী দেবীর মন্দির আর সৌন্দৰ্য মনকে তৃপ্ত করে ।

ঘাটশিলার আকর্ষণের অন্যতম কেন্দ্র রাতমোহনার সৌন্দর্য উপেক্ষা করলে বড় ভুল হবে । রাতমোহনা থাকে দেখা সূর্যাস্ত ও সূর্যোদয় সকলের মনে যে চিরস্হায়ী হয়ে থাকবে এ বিষয়ে গ্যারান্টি দেওয়া যায় ।

কিভাবে যাবেন : হাওড়া থেকে ইস্পাত এক্সপ্রেস, ষ্টীল এক্সপ্রেস, লালমাটি এক্সপ্রেস, রাঁচি ইন্টারসিটি এক্সপ্রেস ও আরও নানা ট্রেন-এ ঘাটশিলা পৌঁছে যান ।

Dharagiri Ghatshila

Dharagiri Ghatshila

Ghatshila dam

Ghatshila dam

Ghatshila

Ghatshila

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *